ইসলামী সংবাদ

বিশ্ব ইজতেমায় হামদর্দের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উদ্বোধন

টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে প্রতিবারের ন্যায় এবারো লাখো মুসল্লীর স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে দেশের স্বনামধন্য ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে হামদর্দ ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।
হামদর্দ বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজ-এর চেয়ারম্যান সাবেক সচিব কাজী গোলাম রহমানের-এর সভাপতিত্বে উক্ত ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, ধর্মসচিব মোঃ আনিচুর রহমান, হামদর্দের চিফ মোতাওয়াল্লী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়াক্ফ প্রশাসক (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ শহিদুল ইসলাম। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হামদর্দ বাংলাদেশ-এর উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন রাসেল, স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সরকারি ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং হামদর্দের চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, হামদর্দ আর্ত পীড়িত ও দুঃস্থ মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত। বিশ্ব ইজতেমায় আগত লক্ষ লক্ষ মুসল্লীর ফ্রি চিকিৎসা প্রদানের জন্য হামদর্দ প্রতিবছর যে উদ্যোগ গ্রহণ করে থাকে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। তিনি আরো বলেন, বিশ্ব ইজতেমায় ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প স্থাপন করে দ্বীন-ইসলামের খেদমতে আল্লাহর রাস্তায় যারা জান-মাল ও সময় ব্যয় করছেন তাদের খেদমতের মাধ্যমে হামদর্দের সদস্যবৃন্দ অশেষ পূণ্য লাভ করবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেন, হামদর্দ একটি জনসেবামূলক ওয়াক্ফ প্রতিষ্ঠান। চিকিৎসা সেবা প্রদানের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি আর্ত-মানবতার সেবায় নিয়োজিত রয়েছে। সভাপতির বক্তব্যে কাজী গোলাম রহমান বলেন, ১৯৮৩ সাল থেকে সর্ব প্রথম হামদর্দ এই বিশ্ব ইজতেমায় মুসল-ীদের চিকিৎসাসেবার পাশাপাশি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করে যাচ্ছে। আনন্দের বিষয় যে বর্তমানে অনেকেই এ সেবা প্রদান করতে এগিয়ে এসেছে। তিনি সকলকে আরো আন্তরিকতার সাথে সেবা প্রদানে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

ধর্মসচিব মোঃ আনিচুর রহমান বলেন, প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমায় হামদর্দের এই কর্মকান্ড আমাদেরকে মানব সেবায় আত্মনিয়োগ করতে অনুপ্রাণিত করে। আমি বিশ্বাস করি আগামীতেও তারা এই সেবামূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখবে।

হামদর্দের চিফ মোতাওয়াল্লী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া বলেন, হামদর্দ আর্ত পীড়িত ও দুঃস্থ মানুষের কল্যাণে, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও মানব সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে হামদর্দ ৩টি ইউনানী মেডিকেল কলেজ, হামদর্দ পাবলিক কলেজ ও হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছে। আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দেশের গরিব ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষাগ্রহণে বিশেষ সহযোগিতা করা হচ্ছে। বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লীদের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ প্রদানের পাশাপাশি আমরা হজ যাত্রীদের জন্য আশকোনা হজ অফিসে ফ্রি চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন করে মাসব্যাপী বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ প্রদান করে আসছি।

ওয়াক্ফ প্রশাসক মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, হামদর্দের সকল কর্মকান্ড মানবসেবার নিবেদিত। মানবসেবায় তাদের এই দৃষ্টান্ত বিরল। আমি আশা করি বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লীদের স্বাস্থ্য সেবায় বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ বিতরনসহ হামদর্দ তাদের সকল কল্যাণ মূলক কাজ অব্যাহত রাখবে।

Facebook Comments

Related Posts