বিনোদন

আলেমের পক্ষে কথা বলায় সাংবাদিককে পেটানোর হুমকি দিলেন পরীমনি

স্টাফ রিপোর্টারঃ হালের জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি।বাংলা চলচ্চিত্রের বর্তমান সময়ে তার ভক্তের অভাব নেই। পরিচালক থেকে শুরু করে সাংবাদিক পর্যন্ত অনেকেই তার ভক্ত। সম্প্রতি চিত্রনায়িকা পরীমনি আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন আলেম শাইখ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ’র ওয়াজের একখণ্ড কাটা ভিডিও নিজের ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করেছেন। যাতে নারীদের অবহেলাকারী বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী ও মুসলিমদের বুঝাতে গিয়ে তিনি নারীকে অসম্মানিত করার কিছু ধারনা তুলে ধরেন। ভিডিওটি পরীমনির ফেইসবুক ওয়ালে দেখে ওয়াসিম এমদাদ নামে এক সাংবাদিক কমেন্ট করেন।

পাঠকের জানার জন্য কথোপকথন হুবহু তুলে ধরা হলো……. ওই সাংবাদিক কমেন্টে লিখেন,

“এটাতো একখণ্ড কাটা ভিডিও। এ কথাগুলো উনি তাদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, যারা মুসলিম হয়েও নারীকে অবমূল্যায়ন করে। সত্যিকার অর্থে উনি একজন বিজ্ঞ ও বিশ্ব বরেণ্য আলেম। প্লিজ পুরো ভিডিও না দেখে উনাদের মত গুণী মানুষদের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তি ছড়াবেন না।”

উত্তরে পরীমনি বলেন, তাহলে পুরো ভিডিওটা নিশ্চয়ই আপনার কাছে আছে, তাই না? সাংবাদিকঃ জি আপু ইউটিউবে উনার অসংখ্য ভিডিও আছে, যেগুলোতে উনি নারীদের মর্যাদা ও সম্মান নিয়ে কথা বলেছেন। পরীমনিঃ এই ভিডিওটার কথা বলছি আমি, দেন তো আমরা সবাই শুনতে চাই। সাংবাদিকঃ অবশ্যই দেবো আপু। তবে একটি ভিডিও দেখে একজন মানুষকে বিচার করা কঠিন। কারো সম্পর্কে আলোচনা বা সমালোচনা করতে হলে তার ব্যাপারে বিস্তারিত জানা ভালো। তাই, আমি বলবো ইউটিউবে উনার বেশকিছু ভিডিওই সবার দেখা উচিত। যিনি যে বিষয়ে যতবেশি অধ্যয়ন করেন, সে বিষয়টা তিনি ততো ভালো জানবেন। যেমন, আপনি চলচ্চিত্র ভালো বুঝবেন। আর আলেম বুঝবেন কুরআন হাদিস। সুতরাং প্রত্যেকেই প্রত্যেককে সম্মান দেয়া উচিৎ।

পরীমনিঃ আপনাকে এতো পন্ডিতি করতে বলি নাই! ভিডিও টা দিতে বলছি। বাংলা বুঝস? সাংবাদিকঃ ধন্যবাদ। সুন্দর ব্যবহারের জন্য। দিচ্ছি আপু।

এর মধ্যে অন্য একজন কমেন্ট করেছে। তখন ওই সাংবাদিক বললেন, বুঝিনি আপু।

পরি মনি বলেন, “বোকাচোদা! তোরেতো বলে নাই, তোর কেন বুঝতে হবে?

সাংবাদিকঃ জী আপু। প্রথম আমাকেই বলেছিলো। তাই উত্তর দিয়েছি। পরে এডিট করা হয়েছে।

পরে সাংবাদিক মূল ভিডিওর লিংকটি কমেন্ট বক্সে দিয়ে দেন। সবাইকে পুরো ভিডিওটা পজিটিভ মাইন্ডে দেখার আহবান জানান তিনি। উত্তরে পরীমনি এবার সাংবাদিককে পেটানোর হুমকি দেন। তিনি বলেন, আমার মাইন্ডটা পজিটিভ না নেগেটিভ তুই কেমনে জানলিরে, জীবনেও সামনে পড়িসনা কান পট্টির মায়া থাকলে মূর্খ চো……

এতে সাংবাদিক ওয়াসিম এমদাদ দুঃখ করে বলেন, একজন সেলিব্রিটি যদি এরকম একটি সামান্য কারণে একজন সাংবাদিকের সাথে এমন অশালীন আচরণ করেন, তাহলে নতুন প্রজন্ম কাদেরকে ফলো করবে? সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরীমনি যে ব্যবহার করলেন, এটা সত্যিই খুব দুঃখজনক।

উল্লেখ্য, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এধরণের বিতর্ক হতেই পারে, তাই বলে কেউ কাউকে এভাবে অপমান সূচক ও আক্রমণাত্মক কথা বলা আমাদের কারোরই কাম্য নয়।

Facebook Comments

Related Posts