অর্থনীতি

সেরা ১০টি প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট সম্মাননা সনদ ও ক্রেস্ট প্রদান

ওয়াসিম এমদাদঃ কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, ঢাকা পশ্চিম, ঢাকা এর উদ্যোগে আজ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ববোর্ডের সম্মেলন কক্ষে সদ্য সমাপ্ত ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান সমুহের মধ্যে সেরা ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট সম্মাননা সনদ ও ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, এনডিসি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব শেখ ফজলে ফাহিম, রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরো এর ভাইস চেয়ারম্যান জনাব বিজয় ভট্টাচার্য এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (মূসক বাস্তবায়ন ও আইটি) জনাব শাহনাজ পারভীন। সভাপতিত্ব করেন কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, ঢাকা পশ্চিম, ঢাকা এর কমিশনার ড. মইনুল খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া রাজস্ব আহরণে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, ঢাকা পশ্চিমের কর্মরত ককর্মকর্তা/ কর্মচারীদের অক্লান্ত প্রচেষ্টার কথা তুলে ধরেন। একই সাথে সঠিকভাবে ভ্যাট পরিশোধ করায় সেরা ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানকেও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, জনগণ পণ্য বা সেবা ক্রয়ের সাথে যে ভ্যাট পরিশোধ করেন তা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া আইনি দায়িত্ব। ব্যবসায়ীরা এই ভ্যাট প্রদানে এগিয়ে আসবেন এটাই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আশা করে।

তিনি আরো বলেন, ভ্যাট আহরণে ১৯৯১ সালের আইনে (চলমান) কিছুটা ত্রুটি বিচ্যুতি রয়েছে। তাই ২০১২ সালে নতুন আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। নতুন আইনটি ব্যবসায়ী সহ সকল পক্ষের সাথে আলোচনা এবং আরো উপযোগী করে আগামী ১লা জুলাই থেকে বাস্তবায়ন করা হবে। নতুন আইন বাস্তবায়নের ফলে দেশের সম্পদ সংগ্রহ আরো বেড়ে যাবে এবং দেশে ব্যবসায় বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ড. মইনুল খান ২৪ তম আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমুহের মধ্যে সেরা ১০টি প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি জানান, মাসব্যাপী এ মেলা থেকে এবারে মোট আহরণকৃত রাজস্বের পরিমাণ দাড়িয়েছে ৭.০১ কোটি টাকা। বিগত অর্থবছরে(বানিজ্য মেলা-২০১৮) এর পরিমাণ ছিলো ৫.২১ কোটি টাকা। গত বছর থেকে এবছরে ১.৮০ কোটি টাকা বেশি রাজস্ব আহরিত হয়েছে বলে জানান তিনি। এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধির হার প্রায় ৩৫%। তিনি বলেন, এ ধরণের অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীগণ ভ্যাট প্রদানে উদ্ভুদ্ধ হবে এবং যথাযথ ভ্যাট আহরণও সহজতর হবে।

এবছর ঢাকা আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় দেশি-বিদেশি মোট ৫৬৯টি স্টল অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে সেরা ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে সম্মাননা সনদ ও ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয় এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। এতে হাতিল কমপ্লেক্স লিঃ এর পক্ষে জনাব মশিউর রহমান, ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিঃ এর পক্ষে জনাব হুমায়ুন কবির কাবি, স্কয়ার ইলেকট্রনিক্স লিঃ এর পক্ষে জনাব আবু বকর, র‍্যাংগস ইলেকট্রনিকস লিঃ এর পক্ষে জনাব মাসুদ হোসেন মানিক, বাটারফ্লাই মার্কেটিং লিঃ এর পক্ষে জনাব শাহজাহান মজুমদার, ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স লিঃ এর পক্ষে জনাব কাজী নাসির, নাভানা ফার্নিচার লিঃ এর পক্ষে জনাব ইয়ামিন রেখু এবং আরএফএল ইলেক্ট্রনিক্স লিঃ, ডিউরেবল প্লাস্টিক লিঃ ও রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিঃ এর পক্ষে জনাব চৌধুরী আতিউর রাসুল সনদ ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন।

Facebook Comments

Related Posts