ক্লায়েন্টরাই আমাদের শক্তিও সাহস যোগাচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০০৩-এ যাত্রা শুরু বিজ্ঞাপন এজেন্সির মাধ্যমে। প্রথম যখন শুরু হয় তেমন কোন প্রস্ততি ছিলোনা। মতিঝিলে ছোট একটি অফিস থেকে যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ব্যবসায়িক প্রয়োজনে অফিসটিও বড় হয়,প্রতিষ্ঠানের লোকবল ও বাড়তে থাকে, বাড়তে থাকে ব্যবসায়িক সম্প্রসারন। এতক্ষন যে প্রতিষ্ঠানটির কথা বলছি সেই প্রতিষ্ঠানটি হলো বর্তমানে ফাইনারী গ্রুপের ১ম সহযোগী প্রতিষ্ঠান ’’ফাইনারী এ্যাডভারটাইজিং লি”.।

সর্ব প্রথম বিজ্ঞাপন এজেন্সির মাধ্যমে ক্ষুদ্র মূলধন নিয়ে যাত্রা শুরু করে।বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি ফাইনারী গ্রুপ অব কোম্পানী হিসাবে সবার কাছে সু-পরিচিত। প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে ৪টি প্রোপাইটারশীপ ৪টি লিমিটেড কোম্পানী ও ১টি পাবলিক লিমিটেড এবং ১টি বহুল প্রচারিত পত্রিকা রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে অনেক অনেক লোকের কর্মসংস্থান। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি মান্নান টাওয়ার, ৪৭/২ টয়েনবী সার্কুলার রোড, মতিঝিলে কর্পোরেট অফিস হিসাবে পরিচালিত হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির ১০টি সহযোগী প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে কর্পোরেট সার্ভিস ও সেবা সুনামের সহিত দিয়ে আসছে দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছর। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর-২০১৮ইং প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী।

এক এক করে ১৬টি বছর কখনও মনে হয় চোখের ফলকে পেরিয়ে গেছে সময়। কিন্তু তা ছিলো বেশ দীর্ঘ। যে সময়টি অতিক্রম করা সহজ ছিলোনা সব সময়। প্রাপ্তি ও দায় দুটি বিষয়ই পথ চলার প্রতিটি মূহর্তে সামনে এসেছে। কোনটির পাল্লা ভারি হয়েছে তা বলা কঠিন। এই কথা গুলো বলছিলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও সিইও নোয়াখালী চাটখিলের কৃতি সন্তান জনাব সুমন মোর্শেদ। যার অক্লান্ত পরিশ্রমে প্রতিষ্ঠানটি আজ এ পর্যন্ত এসেছে। ব্যবসায়িক সম্প্রসারণ ও সহযোগী প্রতিষ্ঠান গুলো সম্পর্কে বলতে গিয়ে জনাব সুমন মোর্শেদ জানান আমাদের প্রতিটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে আমাদের সম্মানিত ক্লায়েন্টদের কথা চিন্তা করে। তিনি আরো বলেন আমরা শুরু থেকে আমাদের ক্লায়েন্টদের সর্বোচ্চ সেবা এবং সার্ভিস দেওয়ার চেষ্টা করছি।

আমাদের ক্লায়েন্টরাই আমাদের শান্তি ও সাহস যোগা্চ্ছে। তাই আশাকরি আগামী দিন গুলোতে ক্লায়েন্টরাই আমাদের সাথে থাকবে এবং সহযোগীতা অব্যাহত রাখবে। ক্লায়েন্টদের অব্যাহত সহযোগীতা থাকলে আমরা আরো সামনে অগ্রসর হতে পারবো।

Facebook Comments