বাংলাদেশ

একুশে পদক প্রাপ্ত গান্ধী আশ্রমের ঝর্ণা ধরা চৌধুরী আর নেই

গিয়াস উদ্দিন রনি, নোয়াখালী : একুশে পদক, রোকেয়া পদক ও ভারতের পদ্মশ্রী পুরস্কার পাওয়া ৮০ বছর বয়সী এই সমাজসেবী গান্ধী আশ্রম ট্রাস্টের সচিব শ্রী মতি ঝর্ণা ধরা চৌধুরী বৃহস্পতিবার সকাল ৬.৩০ মিনিটে স্কয়ার হসপিটালে সিসিইউনিটে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।
এর আগে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বলে আশ্রম কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

ঝর্ণাধারা চৌধুরী অনেকদিন থেকে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার জয়াগ গ্রামে প্রতিষ্ঠিত গান্ধী আশ্রম ট্রাস্টের সচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

সেবামূলক এই প্রতিষ্ঠানের পরিচালক রাহা নব কুমার জানান, ঝর্ণাধারা চৌধুরী দীর্ঘদিন থেকে উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ বার্ধক্যজনিত নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন। পরে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে তাকে রাজধানীতে নেওয়া হয়। দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে আজ ভোরে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে যান।

ঝর্ণাধারা ১৯৩৮ সালের ১৫ অক্টোবর লক্ষীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। মানব সেবায় নিয়োজিত এই নারী সংসার জীবনে যাননি। গান্ধী আশ্রমের সমাজকর্মী হিসেবে ছুটে চলেন গ্রাম থেকে গ্রামে
কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ঝর্ণাধারা চৌধুরী ২০১৩ সালে ভারতের রাষ্ট্রীয় বেসামরিক সম্মান পদ্মশ্রী খেতাবে ভূষিত হন। সমাজসেবক হিসেবে তিনি আন্তর্জাতিক বাজাজ পুরস্কার ১৯৯৮, শান্তি পুরস্কার ২০০০, অনন্যা ২০০১, দুর্বার নেটওয়ার্ক পুরস্কার ২০০৩, কীর্তিমতি নারী পুরস্কার ২০১০, একুশে পদক ২০১৫, বেগম রোকেয়া পদক ২০১৩, সাদা মনের মানুষ পদক ২০০৭ এবং বিভিন্ন জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পদক পেয়েছেন।

Facebook Comments

Related Posts